গুগলের প্রতিদ্বন্দ্বী টিকটক

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৭:৫৪ এএম

সংগৃহীত ছবি

Runner Media

ডেস্ক রিপোর্ট :

হৃদয়ের চেয়ে দ্রুত পরিবর্তনশীল এ বিশ্বে প্রযুক্তির নিত্যনতুন দিগন্ত মানুষকে বিস্মিত করছে। তুলনামূলক বয়স্করা তাল মেলাতে হিমশিম খেলেও ঠিকই নিজেদের পছন্দকে গুরুত্ব দিচ্ছে তরুণ-তরুণীরা, বলা ভালো কচিকাঁচারা। বলা হচ্ছে, টুইটার, ইনস্টাগ্রাম বা ইউটিউব নয়, সার্চ ইঞ্জিন গুগলের নতুন প্রতিদ্বন্দ্বী এখন ‘টিকটক’।

নিউইয়র্ক টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৬ সাল থেকে বিনোদনের মাধ্যম হিসেবে যাত্রা করলেও সার্চ ইঞ্জিন হিসেবে কদর বাড়ছে চীনভিত্তিক যোগাযোগমাধ্যম টিকটকের। বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির খোঁজখবর, ফ্যাশন বা খাবারের সর্বশেষ তথ্য জানতে গুগল নয়, ১৮ বা তাঁর বেশি বয়সীরা এখন ঢুঁ মারছে টিকটকে।

অনেক কারণের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ দুটি হলো—এক. কোনো বিষয়ে না পড়ে শুধু দেখে বা অল্প টেক্সট পড়ে ১ মিনিটের কম সময়ে জানা যায় প্রয়োজনীয় প্রাথমিক সব তথ্য। এটা ব্যবহারকারীকে পড়ার চাপ থেকে মুক্তি দেয়। দুই. এর শক্তিশালী অ্যালগরিদম গুগলের চেয়ে অনেক বেশি পরামর্শ দেয়। ফলে ব্যবহারকারীর মনে হবে কেউ তাকে সরাসরি (লাইভ) নির্দেশনা দিচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রে সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে, বর্তমানে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি ডাউনলোডকৃত অ্যাপ টিকটক। প্রজন্ম জেড বা ১৮ থেকে ২৪ বছর বয়সীদের মধ্যে টিকটক ব্যবহারের প্রবণতা বেশি। কিন্তু, প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞদের একাংশের উদ্বেগ, টিকটক মিথ্যা তথ্য ছড়াতে সহায়তা করবে। কারণ, এটি এমন করে তৈরি করা, যার ফলে ব্যবহারকারীরা অধিকাংশ ক্ষেত্রে টিকটকের তথ্য ক্রসচেক করতে উৎসাহবোধ করে না।
আর এম/ এস ডি