শব্দ দূষনের কারনে ৭ লাখ পাউন্ডের বাড়ি বিক্রি হচ্ছে না

১৮ জানুয়ারি ২০২২, ১২:২৩ পিএম

Runner Media

যুক্তরাজ্য অফিস

৭ লক্ষ পাউন্ডের বাড়িতে ৪০ বছর ধরে বসবাস করে শেষ পর্যন্ত সেটি বিক্রি করতে পারছেন না শুধুমাত্র স্থানের কারনে । এই বাড়িটির সমস্যা হচ্ছে বাড়িটির দাম বেড়েছে লোকেশনের কারনে আবার সেই লোকেশনের কারনেই বাড়িটি বিক্রি করতে পারছেন না। বাড়িটি ব্ল্যাকওয়েল টানেলের পাশেই অবিস্থত! জোয়ান নামের ৭২ বছরের মহিলা বসবাস করেন তার ৪৫ বছরের মেয়েকে নিয়ে ব্ল্যাকওয়েল টানেলের পাশের গ্রীনউইচ ওয়েষ্টকম্ব এলাকায়, ৪০ বছর ধরে।

ঊাড়ির পেছনের গার্ডেনের উপরই হচ্ছে ব্ল্যাকওয়েল টানেলের প্রবেশমুখ! এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন ৫১ হাজার গাড়ি চলাচল করে। অথচ ১৮৯৭ সালে যখন এই টানেল চালু হয় তখন শুধুমাত্র সাইকেল আরোহী, ঘোড়ার গাড়ি ও পায়ে চলাচলের জন্য চালু হয়েছিলো। এখন এই টানেলে প্রতিদিন এতো বেশী সংখ্যাক গাড়ি চলে যে নাইট্রোজেন অক্সাইডের পরিমান সীমা লঙ্ঘন করেছে মারাত্মক! এটি স্থানীয় বাসিন্দাদের জন্য মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকি। সবচেয়ে ঝুঁকিতে আছে বাচ্চারা। অ্যাজমাসহ শ্বাসযন্ত্রের কর্মক্ষমতা কমে যাওয়া, নিয়মিত কাশি হওয়ার মতো অসুস্থতা বাড়ছে।

জোয়ান ও তার মেয়ে গত ৪৪ বছর ধরে শব্দদূষন ও ধোঁয়ার গন্ধ ছাড়া জীবন চিন্তাই করতে পারেন না। জোয়ান বলেন, এখন মনে হচ্ছে শব্দ নিরোধক কিছু লাগানো দরকার, যদিও মেয়ের বয়স যখন ছোট ছিলো তখন এটা করা প্রয়োজন ছিলো। 

মেয়ে বলছে, সে এখন আর শব্দ ছাড়া ঘুমাতেই পারেনা। নি:শব্দে ঘুম এটা কি সে জানেই না। যখন ক্রিসমাস বা কঠোর লকডাউনের সময় নিরব ছিলো তখন তাদের অসুবিধা হতো!

মা জোয়ান বলছেন, তার মৃত স্বামী ডেইভ বারবারই চেয়েছিলেন এই বাড়ি বিক্রি করে অন্যত্র চলে যেতে। কিন্তু দূর্ভাগ্যজনক ভাবে এই শব্দদূষণ আর পরিবেশ দূষণের জন্য এটি বিক্রি হয়না।

একই রোডে ফয়ছল খান নামের আরেক ৫৬ বছর বয়সী ইঞ্জিনিয়ার মাত্র ৭ সপ্তাহ আগে এখানে বাড়ি কিনে এসেছেন। এখন তারও মনে হচ্ছে আবারো বাড়ি বিক্রি করে চলে যেতে হবে। ফয়ছল খান বলেন, এখানে যা হচ্ছে তা ধারনার বাইরে।

এই বিষয় নিয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করে লন্ডনের মেয়র সাদিক খানের কাছে চিঠিও দিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। একই রোডে বাস করেন এক মহিলা জানিয়েছেন তিনি দেয়ালে শব্দ নিরোধক লাগিয়েছেন, এতে শব্দ কিছুটা কম আসে। তবে দেয়ালের সাদা রংয়ের উপর কালো প্রলেপ পড়েছে যা বায়ূদূষণের জন্য হচ্ছে।

জোয়ান বলেন, একই জায়গার কারনে বাড়ির দাম আকাশচুম্বী আবার একই জায়গার কারনে বাড়ি বিক্রি করা যাচ্ছেনা!

আর এম/তানভীর