গার্ড অফ অনার পেলেন নিহত স্কুল শিক্ষিকা আর্সলিং

১৮ জানুয়ারি ২০২২, ০২:৪৫ পিএম

আর্সলিং মারফি

Runner Media

যুক্তরাজ্য অফিস :

যে শিক্ষক গত সপ্তাহেও শিক্ষার্থীদের মিউজিক শিখিয়েছে, তাকে আজ বাক্সে বন্দি করে শেষ বিদায় দিলো সেই শিক্ষার্থীরাই। নিজের শিক্ষার্থীদের হাতে গার্ড অফ অনার পেলেন ২৩ বছরের নিহত আর্সলিং মারফি। 

১৮ তারিখ মঙ্গলবার সকালে মারফির ফিউনারেলের আগে তাকে গার্ড অফ  অনার দেয় তার কর্মরত স্কুলের শিক্ষার্থীরা। এদিকে আসলিং মারফির হত্যাকাণ্ডের সাথে সম্পৃক্ত থাকার কারনে এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। তবে পুলিশ একজন সাইক্লিস্টের ছবি প্রকাশ করা হয়েছে। 

অন্যদিকে মারফির মৃত্যুতে আবারও ব্রিটেনের নারীদের নিরাপত্তার বিষয়টি সামনে চলে এসেছে। নর্থ আয়ারল্যান্ডের হাজার হাজার মানুষ অংশ নিয়েছিলো আসলিং মারফির শেষকৃতের আয়োজনে। ১৮ তারিখ সকালে মাউন্ট বলেস এলাকার সেন্ট ব্রিজ চার্চের সামনে হাজার হাজার মানুষের নিস্তব্ধতায় একটি অনুরোধই জানান দেয়, তা  হচ্ছে যুক্তরাজ্যের নারীরা নিরাপদে বাইরে বের হতে চায়।
 
আসলিং মারফির হত্যাকাণ্ড, সাবিনা নেছা ও সারাহ এভারদের হত্যাকাণ্ডের সাথে মিল আছে বলে, বার বার ঘটে যাওয়ার এই ঘটনার পরিত্রান চান ফিউনারেলে অংশগ্রহনকারী নারীরা।
 
১২ ই জানুয়ারী বিকেলে হাঁটতে বের হয়ে হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছেন ২৩ বছরের আইরিশ স্কুল শিক্ষিকা আসলিং মারফি। অচেনা মানুষ দ্বারা এই হত্যাকাণ্ড ঘটেছে বলে প্রাথমিক ভাবে জানিয়েছে তদন্তকারী পুলিশ। যদিও হত্যাকাণ্ডের পরদিন ৪০ বছরের একজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তবে পরে সেই ব্যাক্তিকে ছেড়ে দেয় পুলিশ।
 
অন্যদিকে পুলিশ আসলিং মারফির শেষকৃতের আয়োজনে জানান, এই ঘটনায় এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। 

তদন্তকারী পুলিশ বলছে, গত ১২ ই জানুয়ারী  নর্থ আয়ারল্যান্ডের টুলামোরের গ্রান্ড ক্যানেলের পাশে এই হত্যাকাণ্ডটি  ঘটে। বিকেল ৪ টার দিকে খুবই জনপ্রিয় একটি এলাকায় এই হত্যাকাণ্ডটি ঘটে। প্রাথমিক ভাবে তদন্তে দেখা যায়, হত্যাকাণ্ডটি অপরিচিত হত্যাকণ্ড। ২৩ বছরের এই মেয়েটিকে যেখানে হত্যা করা হয়েছে ১৯৯৬ সালের পর থেকে সে এই এলাকাতেই থাকতো। ঘরের কাছে হত্যা করা হলো তরুন এই মিউজিশিয়ানকে।