যুক্তরাজ্যে কাউকে 'টেকো’ বলে ডাকা যৌন হেনস্থার সমান!

১৪ মে ২০২২, ০৭:৩০ এএম

ফাইল ফটো

Runner Media

যুক্তরাজ্য অফিস

ব্রিটেনের একটি আদালত জানিয়েছে, কাউকে ‘টেকো’ বলে ডাকা এখন থেকে যৌন হেনস্থা বলে গণ্য করা হবে। এর মানে 'টেকো' বলে ডাকাকে অপরাধ হিসেবে ধরা হচ্ছে। আর কেউ এই অপরাধ করলে অবশ্যই শাস্তি পেতে হবে।

গার্ডিয়ানের খবরে বলা হয়েছে, সম্প্রতি টনি ফিন নামে যুক্তরাজ্যের একজন ইলেকট্রিক কারিগরের আনা অভিযোগের ভিত্তিতে এমন রায় দিয়েছে কর্মচারী নিয়োগ ট্রাইব্যুনাল। পশ্চিম ইয়র্কশায়ারের ব্রিটিশ বুং কোম্পানিতে দীর্ঘ ২৪ বছর ধরে কাজ করেছেন টনি। ২০২১ সালের মে মাসে তাকে ছাঁটাই করা হয়। এরপরই আদালতে মামলা করেন তিনি।

আদালতে টনির অভিযোগ, ২০১৯ সালে কর্মক্ষেত্রে তকাতর্কির সময় একাধিকবার তাকে ‘টেকো’ বলে ডাকেন ওই কারখানার সুপারভাইজার জেমি কিং। বয়সে ৩০ বছরের ছোট সুপারভাইজারের এমন মন্তব্যে অনিরাপদ বোধ করেন টনি। পরে আদালতের দ্বারস্থ হন।

এদিকে এ ঘটনায় বিচারক জোনাথন ব্রেইনের নেতৃত্বে তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনাল রায় ঘোষণার সময় জানান, সহকর্মীর টাক নিয়ে মন্তব্য করা একজন নারীর স্তনের আকার নিয়ে কথা বলার সমতুল্য। তাই এ ধরনের যে কোনও মন্তব্য যৌন হেনস্তার সামিল। আদালত আরও বলেন, যেহেতু টাকের সমস্যা নারীর তুলনায় পুরুষের মধ্যে বেশি, তাই কারও টাক নিয়ে কটূক্তি করার মধ্যে মিশে আছে লিঙ্গ বৈষম্য।

এদিকে আদালত এমন সিদ্ধান্ত জানালেও আপাতত জেমি কিংকে শাস্তি দেননি। কিছুদিন পরে সাজা ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছে আদালত।  

আর এম/এম.জে